দ্য গ্রিন ওয়াক ব্যুরো : গতকাল ও আজ মিলিয়ে প্রায় সাতশ পুণ্যার্থীর ভিড়ের ধাক্কায় আবার দূষিত হল রবীন্দ্র সরোবরের জল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই তোড়জোড় চলছিল। চৈতি ছট উপলক্ষে চারশোর বেশি মানুষ ওই দিন হাজির হন দক্ষিণ কলকাতার ফুসফুস এই জলাশয়ে । আজ শুক্রবার সংখ্যাটা দাঁড়ায় তিনশোতে। নোটিশ বোর্ডে লেখা সতর্কতা উপেক্ষা করেই পুজোর আচার অনুষ্ঠান পালিত হয় লেকের জলে।

জাতীয় সরোবরের জলে ছট পুজোর রীতি এই অঞ্চলে বেশ পুরোনো। পরিবেশবিদরাও চিন্তিত ছিলেন অনেকদিন থেকে। পরিবেশবিদ সোমেন্দ্রমোহন ঘোষ এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, “২০১৬ তেই জাতীয় পরিবেশ আদালত রায় দেয় সরোবরের জলে কোনোরকমের পুজো পার্বণ আর পালন করতে পারবেন না পুণ্যার্থীরা।” কিন্তু আদালতের রায় অবমাননা করে ২০১৭ ও ২০১৮তেও ঘটা করেই ছট পুজো পালিত হয় লেকের মধ্যে। ফলে এই বছর জানুয়ারি মাসে পরিবেশবাদী সংস্থাগুলির পক্ষ থেকে কেন্দ্র ও রাজ্যের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হয় কোর্টে। শ্রী ঘোষের মতে, রবীন্দ্র সরোবর জাতীয় সরোবরের মর্যাদা সম্পন্ন জলাশয়। কেন্দ্রের অধীনে থাকলেও লেকের পরিচর্যার জন্য দায়ী কলকাতা মিউনিসিপ্যালিটি ডেভলপমেন্ট অথরিটি অর্থাৎ রাজ্য সরকার।

দুপক্ষের বিরুদ্ধেই করা আদালত অবমাননার মামলাটি আপাতত বিচারাধীন থাকলেও বাদ যায়নি ছটের আয়োজন। লেক গার্ডেন্স ব্রিজ থেকে শুরু করে টালিগঞ্জ রেলব্রিজের মধ্যবর্তী অংশটি দূষিত হয়েছে সবথেকে বেশি। জলে মিশেছে নানান তৈলাক্ত ও বিষাক্ত রাসায়নিক। পরিবেশকর্মী কল্লোল রায় বলেন, “এটি শুধু রবীন্দ্র সরোবরের অবস্থা নয় , সমস্ত রাজ্যেই একই অবস্থা | আমাদের আরো সচেতন হতে হবে , রাজ্যজুড়েই আমরা মানুষকে এইসব নিয়ে বলছি প্রতিদিনই , মানুষ না সচেতন হলে , এরকম ঘটনা ঘটতেই থাকবে |”

Advertisements