দ্য গ্রিন ওয়াক ব্যুরো : সম্প্রতি আই . আই . টি ইন্ডোরের গবেষণায় ধরা পড়েছে ভয়ঙ্কর একটি সত্য | আই .আই . টির গবেষকদের ইঙ্গিত ভারত মরুভূমি হওয়ার পথে | তাঁরা ১৯৮২ থেকে ২০১০ , ২৯ বছরের তাপমাত্রা , বৃষ্টিপাত ও মাটির আর্দ্রতা থেকে একটা বিশেষ সূচক ঠিক করেছেন , সূচক থেকে দেখা যাচ্ছে , ভারতের ১৬ টি বড় নদীর অববাহিকার অর্ধেক অঞ্চলেই মাটির আর্দ্রতা কম | সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অবস্থা গঙ্গা নদীর অববাহিকায় | গঙ্গা অববাহিকার ২৫% অঞ্চল খরা প্রবণ |

উত্তর-পশ্চিমের নদী মাহি , সবরমতী , লুনী নদীর অববাহিকা ভয়ঙ্করভাবে খরা প্রবণ , অঞ্চলটিকে আগের অবস্থায় ফিরে আনা প্রায় অসম্ভব | দক্ষিণের পেন্নার অববাহিকার ৯৬% খরাপ্রবণ , কৃষ্ণা ও তাপি অববাহিকার ৫০% খরাপ্রবণ |

জার্নাল গ্লোবাল প্ল্যানটেটরি চেঞ্জেস এ আই . আই .টি ইন্ডোরের গবেষকরা ব্যাখ্যা করেন , “এই রকম চরম প্রাকৃতিক অবস্থায় গাছপালা , পশুপাখির বেড়ে ওঠা ও টিকে থাকা কঠিন | এই ভাবে খরার প্রবণতা বাড়তে থাকলে একসময় সমস্ত বাস্তুতন্ত্রটাই বিলুপ্ত হয়ে যাবে | গবেষণাটি প্রমান করে যে এইভাবে চলতে থাকলে সমস্ত অঞ্চলের গাছপালা যেমন অপ্রতুল হয়ে উঠবে তেমনি খাদ্যশস্য উৎপাদনেও মারাত্মক ঘাটতি হবে |”

পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম পরিবেশকর্মী কল্লোল রায় জানান, “বিষয়টি সত্যি খুব ভয়ের , এইভাবে চলতে থাকলে আমাদের নদীমাতৃক সভ্যতা হরপ্পা-মহেঞ্জোদারোর মতো বিলুপ্ত হয়ে যাবে | তবে অববাহিকাগুলো খরাপ্রবণ হওয়ার কারন শুধু বিশ্বউষ্ণায়ণ নয় , প্রধান কারন নদীতে বাঁধ দেওয়া |” নদীগুলিতে বাঁধ দেওয়ার ফলে , তার থেকে মাত্রাতিরিক্ত জল তুলে নেওয়ার ফলে প্রতিটি নদীরই তার অববাহিকায় মাটির নীচে দিয়ে যে সবুজ জলের প্রবাহ থাকে তাতে ঘাটতি পরে , যা খরা হওয়ার অন্যতম কারন |এছাড়া বৃক্ষনিধনও একটা বড় কারন | বেশির ভাগ বড় গাছ কেটে ফেলার ফলে সালোকসংশ্লেষের মাধ্যমে গাছ আর্দ্রতার যে সাম্য রাখত তাও হারিয়ে যাচ্ছে প্রতিদিন |

পরিবেশকর্মী সঞ্জিৎ কাষ্ঠ জানান,”আমরা নদীগুলিকে অবরিল রাখার কথা অনেকদিন থেকেই বলছি | হরিদ্বারের মাতৃসদন আশ্রমের সন্ন্যাসীরা গঙ্গাকে অবিরল করার জন্য আত্মবলিদান দিচ্ছেন | বর্তমানে ২৬ বছরের তরুন ব্রহ্মচারী ১৫০ দিনের বেশি দিন ধরে এই দাবিতেই অনশন করে যাচ্ছেন | সরকার থেকে বিরোধী পক্ষ কেউই আগ্রহী নয় বিষয়টি নিয়ে | কিন্তু আমরা সবাই জানি নদীগুলিকে বইতে না দিলে , তাদের অবিরলতা রক্ষা না করলে আমাদের দেশ একসময় মরুভূমি হয়ে যাবে | আমাদের প্রত্যেকের উচিত ব্রহ্মচারী আত্মবোধানন্দদের আন্দোলনের পাশে থাকা , আমাদের ভারতকে আমরা মরুভূমি হতে দিতে পারি না|”

Advertisements